বারবার প্রকল্প সংশোধনে বিরক্ত প্রধানমন্ত্রী

বারবার প্রকল্প সংশোধনে বিরক্ত প্রধানমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক  : বারবার প্রকল্প সংশোধন নিয়ে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় বিরক্তি প্রকাশ করেছেন একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত একনেক সভায় প্রধানমন্ত্রী এ বিরক্তি প্রকাশ করেন বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হন তিনি।সভা শেষে ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, মঙ্গলবার একনেক সভায় ১০টি প্রকল্প উপস্থাপন করা হয়, এরমধ্যে পাঁচটি সংশোধিত। এর মানে বারবার সংশোধিত প্রকল্প একনেক সভায় আসছে। এ নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।সাধারণত প্রকল্প সংশোধন মানেই ব্যয় ও সময় বৃদ্ধি। এদিন একনেক সভায় ১০টি প্রকল্প অনুমোদিত হয়। তবে এর মধ্যে পাঁচটি প্রকল্পই সংশোধিত, বাকি পাঁচটি নতুন প্রকল্প।সংশোধিত প্রকল্পের মধ্যে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের ‘নেত্রকোনা-বিপিউড়া-ঈশ্বরগঞ্জ সড়ক (জেড-৩৭১০) উন্নয়ন (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পে ২২০ কোটি টাকা খরচ বাড়িয়ে মোট প্রকল্প ব্যয় ৪৮১ কোটি ২০ লাখ টাকা করা হয়েছে। প্রকল্পের মেয়াদ ২০২১ সালের ডিসেম্বর থেকে বাড়িয়ে ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে।ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ‘বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন ভবন নির্মাণ (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পে ৫৯ কোটি ২১ লাখ টাকা খরচ বাড়িয়ে মোট প্রকল্প ব্যয় ২৬১ কোটি ৮৬ লাখ টাকা করা হয়েছে। একইসঙ্গে প্রকল্পের মেয়াদ ডিসেম্বর ২০২০ থেকে বাড়িয়ে জুন ২০২২ পর্যন্ত করা হয়েছে।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ‘১৬টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস নির্মাণ (সংশোধিত ১৭টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস নির্মাণ ও চারটি পাসপোর্ট অফিস ভবনের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ) (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পে ৪১ কোটি ৪০ লাখ টাকা খরচ বাড়িয়ে মোট প্রকল্প ব্যয় ১২৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা করা হয়েছে। একইসঙ্গে প্রকল্পের মেয়াদ জুন ২০২১ থেকে বাড়িয়ে ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত করা হয়েছে।প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ‘শেখ হাসিনা সেনানিবাস বরিশাল স্থাপন (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পে ৩৩১ কোটি ১০ লাখ টাকা খরচ বাড়িয়ে মোট প্রকল্প ব্যয় ২০৩০ কোটি ১০ লাখ টাকা করা হয়েছে। একইসঙ্গে প্রকল্পের মেয়াদ জুন ২০২১ থেকে বাড়িয়ে ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত করা হয়েছে।পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক, গাজীপুরের এ্যাপ্রোচ সড়ক প্রশস্তকরণ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়ন (৩য় সংশোধিত)’ প্রকল্পে তৃতীয় দফায় তিন কোটি দুই লাখ টাকা খরচ বাড়িয়ে মোট প্রকল্প ব্যয় ২৪২ কোটি ছয় লাখ করা হয়েছে। একইসঙ্গে প্রকল্পের মেয়াদ ২০১৯ ডিসেম্বর থেকে বাড়িয়ে ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত করা হয়েছে।নতুন পাঁচটি প্রকল্পের মধ্যে কৃষি মন্ত্রণালয়ের দুটি প্রকল্প যথাক্রমে ১০৬ কোটি আট লাখ টাকা ব্যয়ে ‘ক্লাইমেট স্মার্ট এগ্রিকালচার অ্যান্ড ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট’ প্রকল্প এবং ২০০ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে সিলেট অঞ্চলের কৃষি উন্নয়ন’ প্রকল্প; এক হাজার ৮০৩ কোটি সাত  লাখ টাকা ব্যয়ে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ‘ফ্লাড অ্যান্ড রিভারব্যাংক ইরোশন রিস্ক ম্যানেজমেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম (প্রজেক্ট-২)’ প্রকল্প; শিল্প মন্ত্রণালয়ের দুটি প্রকল্প যথাক্রমে ৭২৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘ইউরিয়া ফরমালডিহাইড-৮৫ (ইউএফ-৮৫) প্ল্যান্ট স্থাপন’ প্রকল্প এবং এক হাজার ১৩২ কোটি ৬১ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘গোপালগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, বরিশাল, রংপুর, জামালপুর এবং যশোর জেলায় বিটাকের ছয়টি কেন্দ্র স্থাপন’ প্রকল্প অনুমোদন করে একনেক।

Leave a reply

Minimum length: 20 characters ::

More News...

  বাজেট অধিবেশন শুরু ৫ জুন

জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েই ক্ষমতায় আছি: প্রধানমন্ত্রী